সালাফী আকিদা ও মানহাজে - Salafi Forum

Salafi Forum হচ্ছে সালাফী ও সালাফদের আকিদা, মানহাজ শিক্ষায় নিবেদিত একটি সমৃদ্ধ অনলাইন কমিউনিটি ফোরাম। জ্ঞানগর্ভ আলোচনায় নিযুক্ত হউন, সালাফী আলেমদের দিকনির্দেশনা অনুসন্ধান করুন। আপনার ইলম প্রসারিত করুন, আপনার ঈমানকে শক্তিশালী করুন এবং সালাফিদের সাথে দ্বীনি সম্পর্ক গড়ে তুলুন। বিশুদ্ধ আকিদা ও মানহাজের জ্ঞান অর্জন করতে, ও সালাফীদের দৃষ্টিভঙ্গি শেয়ার করতে এবং ঐক্য ও ভ্রাতৃত্বের চেতনাকে আলিঙ্গন করতে আজই আমাদের সাথে যোগ দিন।
Golam Rabby

সিয়াম আশুরার সিয়াম (১০ তারিখ) পালনের উদ্দেশ্যে মুহররমের ৯ তারিখ সিয়াম রাখতে না পারলে ১১ তারিখ রাখা যাবে কী?

Golam Rabby

Knowledge Sharer

ilm Seeker
HistoryLover
Q&A Master
Salafi User
Threads
621
Comments
724
Reactions
6,326
Credit
3,553
(১). তাউস (রহঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি আশুরার আগে এক দিন ও পরে একদিন রোযা রাখতেন; ছুটে যাওয়ার ভয় থেকে।[মুসান্নাফে'ইবনে আবু শাইবা, খন্ড: ২ পৃষ্ঠা: ৩‌১৩]

(২). আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামাআতের মহান ইমাম, শাইখুল ইসলাম আবু আব্দুল্লাহ আহমাদ বিন মুহাম্মাদ বিন হাম্বাল আশ-শাইবানী (رَحِمَهُ ٱللَّٰهُ)[ মৃত্যু ২৪১ হিজরী./৮৫৫ খ্রি.] তিনি বলেছেন, ❝যে ব্যক্তি আশুরার রোযা রাখতে চায় সে যেন ৯ তারিখ ও ১০ তারিখ রোযা রাখে। তবে মাসগুলো নিয়ে কোন অনিশ্চয়তা থাকলে তাহলে তিনদিন রোযা রাখবে। ইবনে সিরিন এই অভিমত ব্যক্ত করতেন❞ [কুদামা আল-মুগনি, খন্ড: ৪ পৃষ্ঠা: ৪৪১]

(২). সর্বোচ্চ ‘উলামা পরিষদের সম্মানিত সদস্য, বিগত শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ ফাক্বীহ, মুহাদ্দিস, মুফাসসির ও উসূলবিদ, আশ-শাইখুল ‘আল্লামাহ, ইমাম মুহাম্মাদ বিন সালিহ আল-‘উসাইমীন (رَحِمَهُ ٱللَّٰهُ) [মৃত-১৪২১ হিজরী/ ২০০১ খ্রিস্টাব্দ] তিনি বলেছেন,❝ইহূদীদের বিরোধীতা করার জন্য তিনি এর একদিন পূর্বে ৯ তারিখ অথবা একদিন পরে ১১ তারিখ সাওম রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। সুতরাং আশুরার সাওমের ক্ষেত্রে উত্তম হচ্ছে, মুহার্রমের দশ তারিখের সাথে ৯ তারিখ অথবা ১১ তারিখের সাওম রাখা। অবশ্য ১১ তারিখের চেয়ে ৯ তারিখ সাওম রাখা অধিক উত্তম❞ [ফাতাওয়া আরকানুল ইসলাম ফাতাওয়া নং ৪৪২]

(৪) সৌদি আরবের ‘ইলমী গবেষণা ও ফাতাওয়া প্রদানের স্থায়ী কমিটির (আল-লাজনাতুদ দাইমাহ লিল বুহূসিল ‘ইলমিয়্যাহ ওয়াল ইফতা) ‘আলিমগণ বলেছেন, ❝আশুরার দিন নিজে থেকে রোজা রাখা জায়েয,তবে এর আগের দিন বা পরের দিন রোজা রাখা উত্তম। এটিই রাসূল ﷺ থেকে প্রমাণিত সুন্নত,যেমন তিনি বলেছেন,“আমি যদি আগামী বছর বেঁচে থাকি তবে অবশ্যই নবম রোজা রাখব❞ [আবু দাউদ, হা/২৪৪৫; ফাতাওয়া লাজনাহ দায়িমাহ, খন্ড: ১১ পৃষ্ঠা: ৪০১]
 
Top